Brahmaputra

৳ 1,800.00

ক্যাম্পাস, অফিস কিংবা বিজনেস ট্রিপ- উপলক্ষ্য যেটাই হোক, স্টাইলিশ এই ব্যাগটি আপনার প্রিয় ল্যাপটপকে রাখবে সুরক্ষিত।

– সাইজ: ১২” × ১৫” × ৩.৫”
– ম্যাটেরিয়াল: পাট এবং ভেজিটেবল ট্যানড লেদার।
– দুটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে।

  Hurry up! Sale end in:
+
  •  Delivery & Return

    Delivery

    আমরা পুরো বাংলাদেশে হোম ডেলিভারি দিয়ে থাকি। ডেলিভারির সময় ২-৫ দিন। পণ্যের আকার, ওজন এবং আপনার লোকেশনের উপর নির্ভর করে ৮০-১৫০ টাকা ডেলিভারি চার্জ প্রযোজ্য।

    Return

    আমরা প্রতিটি পণ্য খুবই যত্নের সাথে কোয়ালিটি কন্ট্রোল করি। পণ্যটি নেওয়ার সময় অবশ্যই ভালোভাবে চেক করে নেওয়ার অনুরোধ রইল। এর পরও যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে ডেলিভারির ৭ দিনের মধ্যে রিফান্ডের (শর্ত সাপেক্ষে)  ব্যবস্থা আছে।

    Help

    যেকোন প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। Facebook: https://www.facebook.com/kalindi.com.bd Phone: +880 1810151890 Email: [email protected]
  Estimated Delivery: Jul 15 – Jul 17

  Share

ব্রহ্মপুত্র

ব্রহ্মপুত্র পৃথিবীর দীর্ঘতম নদীগুলির একটি। এর অববাহিকা অঞ্চল চীন (তিব্বত), ভারত ও বাংলাদেশের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। এর উৎপত্তি শিমায়াঙ-দাঙ হিমবাহ থেকে, ভৌগোলিক অবস্থান ৩১°৩০´ উত্তর এবং ৮২°০৮´ পূর্ব। দক্ষিণ তিব্বতের শুষ্ক ও সমতল অঞ্চলের দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে নদটি হিমালয়ের ‘নামছা বারওয়া’ চূড়ার সন্নিকটে বাধাপ্রাপ্ত হয়। এর উচ্চতা ৭,৭৫৫ মিটার। দক্ষিণ-পশ্চিম তিব্বতের উৎপত্তি স্থল থেকে ব্রহ্মপুত্রের সর্বমোট দৈর্ঘ্য ২৮৫০ কিমি। নদটির প্রশস্ততা স্থান ভেদে ৩ থেকে ১৮ কিমি পর্যন্ত, তবে গড় প্রশস্ততা ১০ কিমি-এর মতো। বর্ষা মৌসুমে ব্রহ্মপুত্র বিশাল আয়তনের পানি অপসারণ করে এবং একই সময়ে এটি প্রচুর পরিমাণ পলিও বহন করে। নদটি বছরে প্রায় ৭২৫ মিলিয়ন টন পলি বহন করে থাকে।

বাংলাদেশে এই নদের প্রবাহ পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নামে পরিচিত। অতীতে, ব্রহ্মপুত্র দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ময়মনসিংহ জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল। তখন ব্রহ্মপুত্র নদীটি এর পুরাতন খাত ধরে, অর্থাৎ এখনকার পুরাতন ব্রহ্মপুত্র খাত ধরে ময়মনসিংহের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে দুলালপুর ঘাট (এখনকার ভৈরবের কাছাকাছি) নামক একটি স্থানে মেঘনার সাথে মিলিত হত এবং মেঘনা নামেই সাগর অবধি প্রবাহিত হতো।

brahmaputra river

১৭৮৫ সালে তৈরি রেনেলের মানচিত্রে এভাবেই নদটির গতিপথ চিহ্নিত হয়েছিল। ২০০ বছর আগে ব্রহ্মপুত্রের সকল শাখার মধ্যে পুরাতন ব্রহ্মপুত্রই ছিল সর্ববৃহৎ।

 

brahmaputra river

১৭৮৭ সালের তীব্র ভূমিকম্প ও প্রলয়ংকরী বন্যার পরে নদীটির গতিপথ পরিবর্তন হয়। ঊনবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে এর তলদেশের উচ্চতা মধুপুর গড়ের ভূ-গাঠনিক আলোড়নের কারণে বৃদ্ধি পেয়েছিল।

 

ব্রহ্মপুত্র নদের উৎস নিয়ে ভারতীয় পুরাণে বেশ কিছু কাহিনী বর্ণিত রয়েছে। সনাতন ধর্মানুসারীদের নিকট এই কারণে ব্রহ্মপুত্রের পানি অত্যন্ত পবিত্র বলে গণ্য হয়। প্রতিবছর নারায়নগঞ্জের লাঙ্গলবন্দ ঘাটে বিভিন্ন দেশ থেকে হিন্দুরা এসে গোসল করার মাধ্যমে পাপমুক্ত হন। ব্রহ্মার সন্তান থেকে এই নদের জলধারা এসেছে বলে এর নাম হয় ব্রহ্মপুত্র নদ।

ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক গুরুত্বের পাশাপাশি ব্রহ্মপুত্রের রয়েছে অপরিসীম শিল্প ও বাণিজ্যিক গুরুত্ব। সাম্প্রতিক গবেষণায় ব্রহ্মপুত্র নদের বালিতে ইলমেনাইট, রুটাইল, জিরকন, ম্যাগনেটাইট, গারনেট ও কোয়ার্টজের মতো মূল্যবান ছয়টি খনিজ পাওয়া গেছে। গবেষকরা বলছেন, ১০ মিটার গভীরতায় প্রতি এক বর্গকিলোমিটার এলাকা থেকে প্রাপ্ত খনিজের বাজার মূল্য ৩ হাজার ৬৩০ কোটি টাকা।

এছাড়াও জীবিকার জন্য জেলে সম্প্রদায় ব্রহ্মপুত্রের উপর নির্ভরশীল। ড. পুরুষোত্তম নায়েক ও ড. ভাগীরথী পান্ডা তাদের ‘Brahmaputra and the Socio-Economic Life of People of Assam’ বইয়ে উল্লেখ করেছেন যে বাংলাদেশে পরিচালিত এক জরিপে প্রায় ৬৭ প্রজাতির মাছ চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। একসময় শুষ্ক মৌসুমে ব্রহ্মপুত্রের বুক থেকে জেলেরা জনপ্রতি দৈনিক ৫০ কেজির মতো মাছ ধরতে পারতো। তবে নদের পানি দূষিত হয়ে যাওয়ায় এখন তা ১৫-২০ কেজিতে নেমে এসেছে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে থেকে প্রায় ২৮২.৭ হাজার টন মাছ ধরা হয়েছিল। মাছ ছাড়াও বহু প্রজাতির পাখি, সাপ, কচ্ছপ এবং ডলফিনের দেখা মিলেছে ব্রহ্মপুত্রের বুকে। এককালে এখানে কুমির এবং ঘড়িয়াল (মেছো কুমির) পাওয়া যেত বলে জানা গেছে।

 

Brahmaputra

The Brahmaputra is one of the world’s longest rivers, with its basin spanning vast areas across China (Tibet), India, and Bangladesh. The river originates from the Chemayungdung Glacier, located at 31°30′ N and 82°08′ E. It travels through the arid and flat regions of southern Tibet before being obstructed near the ‘Namcha Barwa’ peak of the Himalayas, which stands at an elevation of 7,755 meters. From its source in southwestern Tibet, the Brahmaputra covers a total length of 2,850 km. The river’s width varies from 3 to 18 km, with an average width of about 10 km. During the monsoon season, the Brahmaputra carries a vast volume of water and a substantial amount of silt, transporting approximately 725 million tons of silt annually.

In Bangladesh, the river is known as the Old Brahmaputra. Historically, the Brahmaputra flowed southeast through the Mymensingh district. It followed its old channel, now known as the Old Brahmaputra channel, passing through Mymensingh and joining the Meghna River at a place called Dulalpur Ghat (near present-day Bhairab), continuing to the sea as the Meghna.

brahmaputra river

This course of the river was marked in Rennell’s map created in 1785. Two hundred years ago, the Old Brahmaputra was the largest among all the branches of the Brahmaputra.

 

brahmaputra river

severe earthquake and catastrophic flood in 1787, the river’s course changed. In the early nineteenth century, the height of its riverbed increased due to the geological uplift of the Madhupur Tract.

 

Indian mythology offers several stories about the source of the Brahmaputra. To followers of Sanatan Dharma (Hinduism), the water of the Brahmaputra is considered extremely sacred due to these legends. Every year, Hindus from various countries come to Langalbandh Ghat in Narayanganj to bathe in the river to cleanse themselves of sins. The river is named Brahmaputra, as its waters are believed to have come from the son of Brahma.

Besides its religious and cultural significance, the Brahmaputra holds immense industrial and commercial importance. Recent studies have found valuable minerals such as ilmenite, rutile, zircon, magnetite, garnet, and quartz in the sand of the Brahmaputra. Researchers estimate that minerals worth approximately 363 billion BDT can be extracted per square kilometer from a depth of 10 meters.

Additionally, the fishing community relies heavily on the Brahmaputra for their livelihood. Dr. Purushottam Nayak and Dr. Bhagirathi Panda, in their book “Brahmaputra and the Socio-Economic Life of People of Assam,” mentioned a survey conducted in Bangladesh that identified about 67 species of fish. Once, during the dry season, fishermen could catch around 50 kg of fish per person daily from the Brahmaputra. However, due to water pollution, this has now decreased to 15-20 kg. In the fiscal year 2014-15, approximately 282.7 thousand tons of fish were caught from the Brahmaputra River. Besides fish, various species of birds, snakes, turtles, and dolphins have been found in the Brahmaputra. It is known that crocodiles and gharials (fish-eating crocodiles) were once found here.

Overall, the Brahmaputra River is a vital natural resource, playing a crucial role in the ecological, economic, and cultural life of the regions it flows through.

SKU: N/A Categories: ,
Close My Cart
Close Wishlist
Recently Viewed Close
Close

Close
Navigation
Categories